• সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ১০:১২ পূর্বাহ্ন

হাজীগঞ্জে স্কুটারের ধাক্কায় পথচারি নিহত

আপডেটঃ : বৃহস্পতিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
হাজীগঞ্জে সিএনজিচালিত স্কুটারের ধাক্কায় হালিমা বেগম (৬০) নামের একজন মহিলা পথচারি নিহত হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের এনায়েতপুর-ডাটরা শিবপুর সড়কের মোহাম্মদপুর গ্রামের ফরাজী বাড়ীর সামনে এ দূর্ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের ভুইয়া বড়ির আলী আহম্মদের স্ত্রী। তার স্বামী, ৫ ছেলে ও ২ মেয়ে সন্তান রয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে আসে।
জানা গেছে, এ দিন সন্ধ্যায় এনায়েতপুর-ডাটরা শিবপুর সড়ক দিয়ে ফরাজী বাড়ীর সামনে দিয়ে হালিমা বেগম বাড়ীর দিকে আসছিলেন। এ সময় তিনি রাস্তা পার হওয়ার সময় পিছন দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত স্কুটার তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের বাড়ীতে উপস্থিত হয়ে মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট করে এবং মরদেহ থানা হেফাজতে নিয়ে আসে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, গ্রাম্য সড়কে সিএনজি (সিএনজিচালিত স্কুটার) গাড়ীগুলো বেপরোয়াভাবে এবং খুব দ্রুত গতিতে চলাচল করে। যার ফলে প্রায় সময় দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। এ বিষয়ে তাদেরকে ডাক (নিষেধ) করলে, তারা (চালক) আমাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন।
এক প্রশ্নের জবাবে তারা জানান, এ অঞ্চলে সিএনজিগুলো মধ্যে বেশিরভাগ সিএনজি চালকের বাড়ী ধোপল্লা, এনায়েতপুরসহ সংশ্লিষ্ট এলাকায়। এদের সাথে কোন বিষয়ে তর্ক-বির্তক হলে, এরা বাড়ীর সামনে আমাদের এলাকার লোকজনকে ধরে খারাপ ব্যবহার করে। অনেক সময় মারধরও করে থাকে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. আনোয়ারুল আজিম জানান, হালিমা নামক একজন মধ্য বয়সি মহিলাকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে, তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপতালে প্রেরণ (রেপার) করা হয়।
থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন রনি বলেন, খবর পেয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে আসা হয়েছে। আমরা আইন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…