• সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন

যাওয়া হলো না মালদ্বীপ, পরপাড়ে পাড়ি দিলেন আনিছ

আপডেটঃ : বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
ছুটি কাটিয়ে আগামি ৮ মে মালদ্বীপ যাওয়ার কথা মো. আনিসুর রহমান আনিছের। সম্প্রতি বিয়েও করেছেন। নব-বধুকে নিয়ে শশুর বাড়ি সহ নিকট আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া কথা। যে প্রস্তুতি সেই কাজ। তাই কিনেছেন নতুন মোটরসাইকেল। কিন্তু এ মোটরসাইকেল তাঁর জমদূত হয়ে হাজির। মালদ্বীপ যাওয়ার আগেই ওপারে পাড়ি দিলেন তিনি। তার স্ত্রীর (নব-বধু) হাতের মেহেদীর রং না মুছতেই হয়ে গেলো বিধবা।
বলছি কচুয়া উপজেলার হাঁড়িচাইন গ্রামের সর্দার বাড়ির জহিরুল হকের মেঝো ছেলে মো. আনিসুর রহমান আনিসের কথা। মাত্র ২৭ বছর বয়সেই রবের ডাকে সাড়া দিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। তিনি হাজীগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার হাটিলা পশ্চিম ইউনিয়নের কাঁঠালী বাজার সংলগ্ন এলাকায় হাজীগঞ্জ-কচুয়া-গৌরপুর সড়কে ট্রাক ও মোটরসাইকেলে মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান তিনি।
এ ঘটনায় ঘাতক ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট ১১-৯৪৫৮)ও দূর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল এবং ট্রাকের চালক ও হেলফারকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশ দেয়। ঘাতক ট্রাকের চালক দিনাজপুর জেলার সদর উপজেলার কসবা গ্রামের মৃত হাছান আলীর ছেলে মো. হাসমত আলী (৫০) ও হেলফার একই উপজেলার ফুলদাঁড়া গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের মো. হাফিজুর রহমান (২২)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এদিন বিকাল ৩টায় কচুয়া মুখী মোটরসাইকেলের সাথে হাজীগঞ্জ বাজার মুখী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেলের চালক আনিসুর রহমান আনিছ গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো. মাসুদ মুন্সী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে নিহতের মরদেহ, ঘাতক ট্রাক ও দূর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল হেফাজতে নেয়।
এ দিকে নিহতের ভাই আরিফ হোসেন জানান, এক মাস আগে হাজীগঞ্জ বাজার থেকে একটি নতুন মোটরসাইকেল ক্রয় করেন আনিসুর রহমান। আজ (মঙ্গলবার) মোটরসাইকেলটি শো-রুম থেকে প্রথম সার্ভিসিং করা কচুয়া যাওয়ার পথে ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই মারা যায় আনিছ।
তিনি কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, মালদ্বীপ থেকে ছুটিতে দেশে এসে মাস খানেক আগে ভাই বিয়ে করেছেন এবং এই মোটরসাইকেলটি কিনছেন (ক্রয়) করেছেন। আগামি মাসের (মে) ৮ তারিখে ছুটি শেষে আবার মালদ্বীপ যাওয়ার কথা। তাই সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্নও করেছেন। অথচ এর আগেই ভাই আমাদের ছেড়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। এ সময় তার কান্নায় পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ জোবাইর সৈয়দ জানান, নিহতের মরদেহ থানা হেফাজতে রয়েছে। তিনি বলেন, দূর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল ও ট্রাক জব্দ এবং ট্রাকের চালক ও হেলফার আটক আছে। নিহতের পরিবারের সাথে কথা বলে পরবর্তীতে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…