• শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

শাহরাস্তিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধীর আত্নহত্যা!

আপডেটঃ : বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

জামাল হোসেন ও ইমতিয়াজ সিদ্দিকী তোহা :

চাদঁপুরের শাহরাস্তিতে গলায় ফাঁস দিয়ে এমরান হোসেন (৩৫) নামের এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী আত্মহত্যা করেছে৷
গেল মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের টামটা গ্রামের জোড় পাটোয়ারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে৷

পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার সূত্র জানাযায়, পাটোয়ারী বাড়ির আঃ ছমেদ পাটোয়ারীর বড় ছেলে এমরান একজন সহজ সরল ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী  প্রকৃতির লোক ছিল৷ সে উপজলার পৌর এলাকার ঠাকুর বাজারে একটি রেস্তোরাঁয় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো৷ ২ বছর আগে একই উপজেলার নিজমেহার রাঢ়ী বাড়ির বিল্লাল হোসেনের কন্যা শান্তা আক্তারের সাথে তার বিয়ে হয়৷ সাংসারিক জীবনে তাদের সুসম্পর্ক না হওয়ায় প্রায় ১বছর পূর্বে শান্তা তার পিত্রালয়ে চলে যায়৷   ঘটনার আগের ৩ দিন ভিকটিম বাড়ি ফেরেনি৷ ওইদিন রাত সাড়ে ৯ টার সময় বাড়ি এসে ১০ টার দিকে নিজ কক্ষে প্রবেশ করে৷ রাত ১২ টার সময় তার মা নূরজাহান বেগম প্রকৃতির ডাকে ঘুম থেকে উঠে ভিকটিমকে নিজ ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস দেয়া অবস্থায় দেখতে পায়৷ খবর পেয়ে রাতেই শাহরাস্তি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আবদুল মান্নান ও উপ-পরিদর্শক মোঃ ইদ্রিস মিয়া লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে৷

 

টামটা দঃ ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ আঃ রহিম পাটোয়ারী জানান, ভিকটিমের স্ত্রী পিত্রালয়ে চলে যাওয়ার পর হতে সে তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে এনে দিতে বিভিন্ন লোকজনকে জ্বালাতন করতো৷ কিছুটা প্রতিবন্ধী প্রকৃতির হওয়ায় তার মেজাজ অনেক চড়া থাকতো৷

 

এ বিষয়ে ভিকটিমের শ্বশুর মোঃ বিল্লাল হোসেন জানান, বনিবনা না হওয়ায় ১বছর আগেই মেয়েকে ওই বাড়ি হতে নিয়ে আসি৷ সে সময়ে সামাজিক ভাবে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত হলেও ছেলের পরিবারের লোকজন এগিয়ে না আসায় বিষয়টি আনুষ্ঠানিক ভাবে সমাধান হয় নি৷

শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহ আলম বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে৷ এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে৷


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…