• বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৩:১১ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরে ঝুঁকি নিয়ে পরিচালিত জাটকা সংরক্ষণ অভিযান

আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ১২ মে, ২০২০

অমরেশ দত্ত জয়ঃ

চাঁদপুর নৌ থানা পুলিশ মার্চ-এপ্রিল ২ মাস অভয়াশ্রমের জাটকা সংরক্ষণ অভিযানের সফল সমাপ্তি করেছে।জীবন ঝুঁকি নিয়ে তারা তাদের কর্ম তৎপরতায় জাতীয় সম্পদ ইলিশ রক্ষা করতে চেষ্টা করেছে।এদিকে চাঁদপুর নৌ থানার অফিস সহকারী মোঃ আব্দুল আজিজ মিয়া জানায়,এই অভিযানে মার্চ মাসে ২১ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা সমমূল্যের ৭৩ লক্ষ ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল,৬৭ লক্ষ টাকা মূল্যের ১ লক্ষ ৫০ হাজার মিটার সুতা জাল,২ লক্ষ ৭১ হাজার ৫’শ টাকা মূল্যের ৯’শ ৫ কেজি ইলিশ এবং ২ লক্ষ টাকা মূল্যের ৪টি নৌকা নদীতে ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে।এসময়ে মোট ৬টি মোবাইল কোর্টে ১ আসামীর ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড,১ জনের নগদ ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড এবং ১টি নিয়মিত মামলা সহ মোট ৫ আসামী(জেলে/মাঝি) আটক করা হয়েছে।যার সাথে আরো ৪টি নৌকা নৌ থানা ও ২টি নৌকা সদর মডেল থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।চাঁদপুর নৌ থানার অফিস সহকারী মোঃ আব্দুল আজিজ মিয়া এপ্রিল মাসের কর্ম তৎপরতা সম্পর্কে জানায়,৫ কোটি ৪৯ লক্ষ ৬৭ হাজার টাকা সমমূল্যের মোট ১৮ লক্ষ ৩২ হাজার মিটার কারেন্ট জাল উদ্ধার করা হয়েছে।এর সাথে ১ লক্ষ ৭২ হাজার ৫’শ টাকার ৫’শ ৭৫ কেজি জাটকা ইলিশ জব্দ করা হয়।অন্যান্যের মধ্যে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা মূল্যের ২টি নৌকা,নিয়মিত মামলা ১টি এবং ৩জন আসামী আটক করা হয়েছে।১০ই মে রোববার এ ব্যপারে চাঁদপুর নৌ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহিদুল ইসলাম জানান,জাটকা সংরক্ষণের ২ মাসের অভিযান সমাপ্ত হয়েছে।এ সময়ে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে আটক জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।আর জব্দকৃত মাছ অসহায় গরিব,দুঃখী,এতিমখানায় বিলিয়ে দেওয়া হয়েছে।জব্দকৃত নৌকার ব্যপারেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।নদীতে তাদের অবস্থান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে তিনি বলেন,চাঁদপুর লকডাউনে রয়েছে।তাই নদীতে শুধুমাত্র পণ্যবাহী ট্রলার চলছে।এছাড়া সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রলার চলাচল বন্ধ নিশ্চিত করা হয়েছে।নদী পথে ইন-আউট বন্ধ ও (পুশব্যাক) করতে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত আমাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…