মতলব প্রতিনিধিঃ- মতলব দক্ষিন উপজেলার মতলব পৌরসভার সাবেক ফেরিঘাটের ধনাগোদা নদীর পারের অনেকটা অংশ দখল করে, উন্মুক্ত পরিবেশে দীর্ঘদিন যাবৎ, মতলবের প্রভাবশালী মহলের কয়েকজন ব্যাক্তি বালুর রমরমা ব্যবসা করে আসছে। এসব ব্যবসায়ীদেরকে স্থানীয় ভুক্তভোগী মহল অভিযোগ করলেও কোনভাবেই কর্ণপাত করেন নাই। প্রতিবাদ করতে গিয়ে অনেকেই বালু ব্যবসায়ীদের হুমকিতে চুপ হয়ে গেছে। নদীর পাড় দখল করে প্রকাশ্যেই জনবহুল সড়কের পাশেই, বালু ব্যবসা চলে আসছে বছরের পর বছর।

 

পরিবেশ দূষণকারী এই বালু ব্যবসা সংক্রান্ত প্রতিবেদন পত্রিকায় কয়েকবার প্রকাশ হলেও, কোন ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি স্থানীয় প্রশাসন, এলাকার জনপ্রতিনিধি কিংবা পরিবেশ অধিদপ্তর। তবে সংবাদ মাধ্যমে জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি পরিবেশন থেমে থাকেনি।

 

সম্প্রতি সময়ে মতলব দক্ষিন উপজেলার থানা সংলগ্ন, সাবেক ফেরি ঘাটের সাথে ও নারায়নপুর ও নায়েরগাঁও ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন এলাকায় সরকারি জায়গা দখল করে উন্মুক্ত বালু ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে প্রভাবশালী একটি মহল। তাদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করা হলেও প্রশাসনের নিরব ভুমিকায় হতাশাগ্রস্ত হয়ে পরেছেন এলাকার লোকজন।

 

মতলব পৌরসভার থানা সংলগ্ন সাবেক ফেরিঘাট এলাকায় সরকারি নদী ও জেলা পরিষদের জায়গা দখল করে বেশ কয়কটি বালুর মহল গড়ে উঠেছে। এতে করে পরিবেশ দূষিত হয়ে স্ব্যাস্থ ঝুঁকিতে পরেছে এলাকাবাসী।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বালু ব্যাবসায়ী লোকমান হোসেন জানান,আমি নিজের জায়গায় বালুর ব্যাবসা করচ্ছি এবং নদিগর্ভে আরো অনেক জায়গা পাবো।এই খানে কোন সরকারি জায়গা নেই।

 

এলাকাবাসিরা জানান একটু বাতাস আসলেই বালুর কারনে স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী সহ সাধারন জনগনের স্ব্যাস্থ ঝুঁকি নিয়েই চলাফেরা করতে হচ্ছে, উল্লেখ্য ঐ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন মতলবের দুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় দুটি কলেজ এবং সরকারি হাসপাতালের কয়েকশ পথচারী প্রতিদিন যাতায়াত করেন। এই ভয়াবহ দূর্ভোগ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন এলাকাবাসী।

Share This post