• মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন

মতলব দক্ষিণ মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার ঘটনায় আটক – ১

আপডেটঃ : বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯

 

সফিকুল ইসলাম রিংকু :
মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও উত্তর ইউনিয়নের নন্দীখোলা সিনিয়র ফাযিল মাদ্রাসার ছাত্র সোহেল রানা হত্যা মামলায় বন্ধু ফরহাদ হোসেন খলু (১৮)কে ২০ আগস্ট মঙ্গলবার আটক করেছে থানা পুলিশ। আটককৃত বন্ধু ফরহাদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নিহত সোহেলের মস্তক উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, মামলায় সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় তথ্য ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাত ৪টার দিকে সোহেল রানা হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে এলাকা থেকে পুলিশ ফরহাদকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে সোহেল রানার হত্যার সাথে সে জড়িত ও মস্তক পুকুরে ফেলে দেয়ার কথা জানায়। পরে পুলিশ মঙ্গলবার যে পুকুর পাড় থেকে সোহেলের মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করেছিলো সেই পুকুর থেকেই আটককৃতের কথা মতো মস্তক উদ্ধার করে।

এলাকাবাসী জানায়, হত্যাকা-টি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক। আমরা এলাকাবাসী মস্তকবিহীন লাশ, মস্তক উদ্ধারের দৃশ্য ও তার মৃত্যুতে স্তম্ভিত হয়ে পড়েছি। কেউ কাউকে এমনভাবে মারতে পারে না।

পেয়ারীখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম বলেন, সোহেল ও ফরহাদ দুজনই আমার স্কুলের একই ক্লাসের ছাত্র ছিলো।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল ২০ আগস্ট ময়নাতদন্ত শেষে পেয়ারীখোলা বাজার মোড়ে নিহতের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে মরহুমের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে সোমবার রাতেই নিহতের বড় ভাই সাইফুল ইসলাম সোহাগ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তিনি বলেন, আটককৃত ফরহাদ এলাকার সম্পর্কে আমার চাচাতো ভাই। একটি মোবাইল ফোন সেটের জন্যে আমার ভাইকে মেরে ফেললো। আমরা পরিবারের সকলে এ হত্যার সাথে যারা জড়িত তাদের সুষ্ঠু বিচার ও ফাঁসি চাই।

মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ফরহাদ হোসেন খলুকে আটক করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির ভিত্তিতে সোহেলের মস্তক উদ্ধার করা হয়। এর সাথে আরো কেউ জড়িত আছে কি না তদন্তের স্বার্থে বলতে পারছি না। তবে তার কাছে থাকা একটি অ্যান্ড্রোয়েড মোবাইল ফোন সেটের জন্যে এ হত্যাকা- ঘটতে পারে।

উল্লেখ্য, গত ১৯ আগস্ট সোমবার দুপুরে সোহেল রানা (১৭)-এর মস্তকবিহীন লাশ পরিত্যক্ত নতুন বাড়ি সংলগ্ন পুকুর পাড় থেকে উদ্ধার করে থানা পুলিশ। তাদের বাড়ি উপজেলার উত্তর পেয়ারীখোলা গ্রামে। তার পিতার নাম জমির হোসেন তালুকদার ও মাতা সামছুন্নাহার। ৩ ভাই ও ১ বোনের মধ্যে সোহেল রানা দ্বিতীয়।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…