• সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন

মতলবে কৃষি জমিতে অবৈধভাবে ড্রেজারে বালু উত্তোলন : হুমকির মুখে ফসলি জমি

আপডেটঃ : বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯

সফিকুল ইসলাম রিংকু :

মতলব (দঃ) উপজেলার উপাধি (উঃ) ইউনিয়নের নওগাঁও গ্রামে আবাদি কৃষি জমিতে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে, একশত ছাব্বিশ শতাংশ ফসলি জমি ধ্বংস করে, অবৈধভাবে বালু উওলোন করছেন, নওগাঁও গ্রামের, মোঃ ফরহাদ মজুমদার। ড্রেজার দিয়ে চলছে এই অবৈধ বালু উত্তোলন এর ব্যবসা।

সে বর্ষার শুরু থেকেই অবৈধ ড্রেজার দিয়ে মাটি উত্তোলনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলে দাবি করেছেন স্থানীয়রা। বর্ষার শুরু থেকেই অবৈধ ড্রেজারের মাধ্যমে একশত ছাব্বিশ শতাংশ আবাদি জমি থেকে বালু উত্তোলনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ভূমি খেকো ফরহাদ।

নিজেই ড্রেজার ভাড়া নিয়ে, বিশাল আবাদি জমি নষ্ট করে ড্রেজিং কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে পার্শ্ববর্তি জমিগুলো নষ্ট হচ্ছে বলে দাবি করেছেন, সব জমির মালিকরা। এখন ফরহাদের কাছে জিম্মি ও অসহায় হয়ে পড়েছেন জমির মালিকেরা। সরেজমিনে, কৃষকদের সাথে কথা বললে কৃষকরা বলেন, ফরহাদ কৃষকদের কাছ থেকে জমি কিনে, সেই জমি থেকে মাটি থেকে বালু বিক্রি করে।

এতে করে পার্শ্ববর্তী জমির মালিকরা তাদের জমির উৎপাদন ক্ষমতা হারিয়ে ফেলছে। তাই তারা চাষাবাদ করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন। ফলে ফসলের উৎপাদন দূরে থাক নিজেদের জমির সুরক্ষা করতে তারা কোন উপায় দেখছে না।

এসব অবৈধ ড্রেজারের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে নওগাঁর মতো পুরো উপজেলায় দিন দিন ভূমি খেকোরা অবৈধ পন্থায় তাদের নিরব মাটি বেচা-কেনার ব্যবসায় পকেট ভারি করতে থাকবে। তাই স্থানীয় কৃষক ও সচেতন জমির মালিকদের দাবি অচিরেই এদের বিরুদ্ধে প্রশাসন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন না করলে আগামিতে কৃষি জমির অস্থিত্ব খুজে পাওয়া যাবে না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহিদুল ইসলাম কে বিষয়টি জানালে তিনি বলেন, ‘এলাকার ফসলি জমি নষ্টকারীদের বিরুদ্ধে, শীগ্রই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…