গাজী মমিন, ফরিদগঞ্জ চাঁদপুর:
চাঁদপুর ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৬নং গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের খাজুরিয়া গ্রামে অঞ্জলি রানী দাস (৫৫) নামে এক বিধবা বৃদ্ধা মহিলাকে পাশবিক নির্যাতনের পর নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। পরিবার ও স্থানীয়দের অভিযোগ তাকে ধর্ষণের পর গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে।
মঙ্গলবার সন্ধ্যারাতে নিজ বাড়ির বসতঘরে রক্তাক্ত অবস্থায় ও বিবস্ত্র অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, অঞ্জলী রানী দাস ওই গ্রামের সর্ঙীয় ইন্দ্রজিৎ’র স্ত্রী। পরিবারের একমাত্র ছেলে প্রবাসী। গত বছরে তার স্বামীর মৃত্যুরপর নিজের ঘরে একাই বসবাস করতেন তিনি। গত সমবার থেকে বাড়ীর বাসিন্দাগণ তাকে দেখতে না পেয়ে তার আত্মীয়দের বাড়ীতে খোজ খবর নেওয়ারপর পাশ্ববর্তি জেলা লক্ষ্মীপুর থেকে অঞ্জলী রানী দাসের বোন পূর্ণিমা ও ভগ্নিপ্রতি খোকন এসে ঘরের দরজা বন্ধ দেখে জানালা দিয়ে উঁকিমেরে ঘরের বিতরে লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগীতায় পুলিশে খবর দেয়।
খবরপেয়ে ঘটনার স্থান পরিদর্শন করেছেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আফজাল হেসেন ও ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রকিব।
এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছে নিহতের স্বজন, এলাকাবাসী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।
এবিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রকিব জানিয়েছেন,অঞ্জলী রানী দাসের ভাই অমর কৃষ্ণ দাস বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামী সনাক্তের আলোকে তদন্ত চলমান ও নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি মুঠো ফোনে এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন

Share This post