অমরেশ দত্ত জয়ঃ

চাঁদপুরের হাইমচরে নেশা করতে বাঁধা দেয়ায় শ্বশুর বাড়ী থেকে তাহানা নামে এক বছর বয়সী শিশুকে নিয়ে পাষন্ড পিতা সুজন রাঢ়ী নামে একজন পালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সন্তানকে চুরি করে নিয়ে যাওয়ায় এখন পাগলের মতো মা তাহমিনা বেগম কান্নাকাটি করছে বলেও জানা যায়।

শুক্রবার (পহেলা মে) রাত ৮টার দিকে হাইমচর উপজেলার ২ নং উঃ আলগী ইউনিয়নের মহজমপুর গ্রামে শিশুর নানার বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। পাষন্ড পিতা সুজন রাঢ়ী ৩ নং দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের পগু রাঢ়ীর ছেলে।

সরজমিনে গেলে শিশুর নানা আহসান হাবীব ওরফে আনছার সাংবাদিকদের জানান, গত ৩ বছর আগে সামাজিক ভাবে সুজনের সাথে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পরে সুজন ভালই ছিলো। পরে বন্ধুদের সাথে মিশে বদ নেশায় জড়িয়ে পড়ে। এই নিয়ে কয়েকবার স্থানীয়ভাবে শালিশ বৈঠকও হয়। সর্বশেষ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মোতালেব জমাদারসহ স্থানীয় লোকজন শালিশ বৈঠক করার জন্য দিন তারিখ ঠিক হলেও ওই বৈঠকে সুজন ও তার পরিবারের লোকজন আসেনি।

তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন, সুজন নেশা করায় আমার মেয়ের সাথে ঝগড়াবিবাদ হয়। ৪-৫ মাস হয়েছে তাহামিনা আমাদের বাড়ীতে রয়েছে। তার নেশা ছেড়ে দেয়ার বিষয়ে সমাধান না হওয়ায় স্বামীর বাড়িতে যায়নি। এই কারণে সে সকলের অজান্তে আমার নাতনিকে রাতে চুরি করে পালিয়ে যায়। বিষয়টি আমি মোতালেব জমাদার ও সুজনদের এলাকার ইউপি সদস্যকে জানিয়েছি।

এ ব্যপারে দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আবদুল মান্নান সাংবাদিকদের এঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, পুরো বিষয়টি আমি জেনেছি। সুজন খুবই খারাপ। নেশাখোরদের সাথে মিশে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ায়। তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। খুঁজে পেলে অবশ্যই আইনের হাতে তুলে দিবো। শিশুকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।এদিকে এ ঘটনায় পালিয়ে যাওয়া সুজনের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Share This post