অমরেশ দত্ত জয়ঃ

 

নারায়ণগঞ্জের যুবলীগ নেতার তত্ত্বাবধান থেকে ১২’শ বস্তা নয় উদ্ধার হয়েছিলো চাঁদপুরের ব্যবসায়ীদের চালানের ১ হাজার ৪০ বস্তা চাল। যদিও বিভিন্ন গণমাধ্যমে ১২’শ বস্তা চাল উদ্ধার হয় শিরোনামে সংবাদ প্রচার হয়েছিলো। ৫ই মে মঙ্গলবার গণমাধ্যম কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন চাঁদপুর সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর(নিঃ) (অপারেশন্স এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং)মুহাম্মদ মুরশেদুল আলম ভূঁইয়া।

 

তিনি বলেন,পাবনা নগরবাড়ী হতে ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে নদী পথে চলতি বছরের ২১শে এপ্রিল সোনার মদিনা(২) নামে একটি বলগেইট ৫ হাজার ৭’শ বস্তা চাল নিয়ে পুরানবাজার ঘাটে আসে।এরপর মালগুলি আনলোড করতে থাকে এবং যার যার গদিতে বস্তাভর্তি চাল পৌঁছানো হচ্ছিলো। যদিও বৃষ্টিজনিতকারনে চাউল আনলোড করতে দেরি হচ্ছিলো।কিন্তু হঠাৎ করেই গত ২৮শে এপ্রিল ভোর রাত ২টা হতে আনুমানিক ৫ টার মধ্যবর্ত্তী সময়ে ওই বলগেইটটির সুকানি,মাঝী ও একটি সঙ্গবদ্ধ চক্র ব্যবসায়ীদের খরিদকৃত ২৭’শ বস্তা চাল পাচারের উদ্দেশ্যে চুরি করে নিয়ে যায়। যার মধ্য থেকে ১ হাজার ৪০ বস্তা চাল পহেলা মে শুক্রবার উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

 

তিনি পূর্বের ১২’শ বস্তা উদ্ধার হয়েছে সংবাদের ব্যাখা জানাতে গিয়ে গণমাধ্যম কে বলেন,পুলিশ ও র‍্যাব যৌথ অভিযানে ওই চাউলগুলি উদ্ধার করেছিলো। সরজমিনে কাগজপত্র পর্যালোচনা করে এবং গুনে দেখি ১ হাজার ৪০ বস্তা চাল জব্দ হয়েছে।আর ওই চাল জব্দ করার সময় স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় উপস্থিত ছিলেন।

 

আর সিজার লিস্টেও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাউন্টারের সই রয়েছে। এ ব্যপারে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুক্লা সরকার জানান,চাউলের বস্তাগুলো রাত সাড়ে ১১ টার সময় জব্দ করা হয়েছিলো।তখন ঐখানে কারেন্টের সমস্যা ছিলো।

 

তাই তাৎক্ষণিক গণমাধ্যমকর্মীরা জানতে চাওয়ায় ১ হাজার থেকে ১২’শ বস্তা চাউল হতে পারে এমনটি জানিয়েছিলাম।আর আমরা সেসময়ে গোডাউনের চাউল সিস করে ওই গোডাউনটি সিলগালা করার প্রক্রিয়ায় মূলত ব্যস্ত ছিলাম। মূলত ১ হাজার ৪০ বস্তা চাউল উদ্ধার হয়েছিলো।এদিকে গণমাধ্যমকে চুরি হওয়া বাকি বস্তা চাল ও সংশ্লিষ্ট আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

 

এমনটি জানিয়ে পুলিশের ওই ইন্সপেক্টর মুহাম্মদ মুরশেদুল আলম ভূঁইয়া গণমাধ্যমকে আরো জানান,উদ্ধার হওয়া ১০৪০ বস্তা চাল পুরানবাজারের আবুল বাশার কাশেমের গোডাউনে রাখা হচ্ছে। মাল গোডাউনে সব আনলোড হয়ে গেলেই ওই গোডাউন সিলগালা করে দেওয়া হবে। পরবর্তীতে আইনিপ্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে যার যার চাল তার কাছে হস্তান্তর করা হবে।

 

এ ব্যপারে চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি পরেশ মালাকার গণমাধ্যম কে জানান,আমাদের কষ্টে উপার্জিত টাকায় খরিদ করা ওইসব চাল। তাই মালগুলো যাতে দ্রুত পেতে পারি।সেই সাথে সংশ্লিষ্ট আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে শাস্তির আওতায় আনার দাবী জানাচ্ছি।

 

প্রসঙ্গত,চাঁদপুর পুরানবাজার ঘাট হতে চুরি হয় ২৭’শ বস্তা চাল।যার মধ্যে ১০৪০ বস্তা চাল নারায়ণগঞ্জ হতে উদ্ধার হয়। যা স্থানীয় মদনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ ভূঁইয়ার তত্ত্বাবধানে কেওঢালা হায়দারী গার্মেন্টসের গুদামে ছিলো। পরবর্তীতে বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার ওই গুদামটি সিলগালা করে দেন।

Share This post