অমরেশ দত্ত জয়ঃ

চাঁদপুর সদরে জমি সংক্রান্ত জেরে স্ত্রী’র বিরুদ্ধে স্বামী হত্যার অভিযোগ উঠায় আদালতের নির্দেশে কবর থেকে মৃতের লাশ উত্তোলণ করা হয়েছে। ৪ই মে সোমবার বালিয়া ইউনিয়নের মিজি বাড়ী কবরস্থান হতে লাশটি উত্তোলন করা হয়।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর মডেল থানার এস আই সিরাজুল ইসলাম জানান,মিন্টু মিজি(৪০) নামের এক লোক কে শ্বাসরোধ ও আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে মর্মে শেফালী বেগম নামে একজন (তার বোন) অভিযোগ করেন।
তার প্রেক্ষিতে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।রিপোর্ট আসলে পরবর্তী আইনি কার্যক্রম করা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সদরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট(ভূমি) ইমরান হোসেন সজীব জানান,আদালতের নির্দেশেই লাশটি ময়না তদন্তের জন্য উত্তোলণ করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনা প্রসঙ্গে মামলার বাদী শেফালী বেগম,স্থানীয় মোঃ সোলাইমান তালুকদার সহ অন্যান্যরা জানান,গত ২৬শে এপ্রিল অনুমান দিনের ২টা হতে সন্ধ্যা ৬ টার মধ্যের যেকোন সময়ে মিন্টু মিজি(৪৫)কে হত্যা করা হয়েছে। আমরা মৃতের দেহে কালোদাগ এবং মাথার পিছনে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পেয়েছি। সম্পত্তির লোভেই এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

তারা আরো জানান,মৃত মিন্টু মিজি সৌদী প্রবাসী। গত ৩ মাস পূর্বে তিনি দেশে ফিরেছেন। এরপর স্ত্রীর নিকট হিসাব-নিকাশ চেয়েছিলো বলেই এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

এদিকে ওই মামলার অভিযোগে আব্দুর রশিদ জমাদের মেয়ে লাইলী বেগম(৩৫) এবং ছেলে সোহাগ জমাদার(৩০) কে উল্লেখ করে অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগে উল্লেখিত দুজন মৃত মিন্টু মিজির স্ত্রী এবং স্ত্রীর আপন ভাই।

এদিকে মিন্টু মিজির স্ত্রী ও তার ভাইদের পক্ষে (ভায়রা) শাহাবুদ্দীন পাটোয়ারী জানান,শহরের মমিনপাড়া বহরদার নিজ বাড়ীতে মিন্টু মিজি স্ট্রোক করেন। তাকে চিকিৎসা দিতে ঢাকা নেওয়ার পথে তিনি মারা গেছেন। অন্য সব অভিযোগগুলো মিথ্যা,বানোয়াট। তাই যারা মামলা দিছে তাদের শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

Share This post