গাজী মমিন,ফরিদগঞ্জ:
ফরিদগঞ্জ উপজেলার উপরদিয়ে বয়ে যাওয়া চাঁদপুর-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক মহাসড়কটি ক্রমেই ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। শতাধিক স্থানে সড়কে পিচ উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে সড়ক দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে দৈনিক হাজারো যানবাহন ও হাজার হাজার পথচারী। এসব গর্তে গাড়ির চাকা পড়ে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। সংস্কার না করায় ব্যস্ত এই সড়কটি যেনো মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। এতে করে চরম জনদূর্ভোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে এ সড়কটি। এরই সাথে বেড়েছে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকাও।
সড়কটির সবচেয়ে দূর্ঘটনা প্রবণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত যে কয়েকটি স্থান রয়েছে, তার মধ্যে ধানুয়া বাজার এলাকা, ভাটিয়ালপুর চৌ রাস্তা, কালির বাজার চৌ রাস্তা, পূর্ব বড়ালী ব্রীজ এলাকা, চতুরা এলাকা, খেজুর তলা এলাকা, গৃদকালিন্দয়া এলাকাসহ বেশ কয়েকটি স্থানে ছোট-বড় অনেক গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।
ওই স্থান গুলোতে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের কার্পেটিং উঠে গিয়ে, মাঝখানে উচুঁ নিচু ছোট-বড় অনেক গর্ত হয়ে মারাত্বক ঝূকি দেখা দিয়েছে। আবার কোনো কোনো স্থানে বিশাল গর্ত সৃষ্টি হয়েছে।
সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী ও যানবাহন চালকরা জানায়, গত ৬ মাসে এ সড়কে প্রায় ১৫ হতে ২০টি দূর্ঘটনা ঘটেছে। এতে যানবাহনের যাত্রীসহ প্রায় ১৫ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।
আশিকুর রহমান নামে এক পিকআপ ভ্যান চালক জানান, তিনি গত ৩ মাস পূর্বে এ সড়কদিয়ে গাড়ী চালানোর সময় মুকবুল পন্ডিত ব্রীজ এলাকায় একটি সিএনজিকে সাইড দিতে গিয়ে তার গাড়ীর চাকা সড়কের খাদে পরে দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন।
মোবারক হোসেন নামে অপর এক গাড়ী চালক জানান, আমরা সড়কদিয়ে যখন গাড়ী চালাই, মনের বিতর অনেক ভয় কাজ করে, মনে হচ্ছে খাদে পড়ে এখনি দূর্ঘটনার শিকার হই।
ফরিদগঞ্জ বাসট্যান্ড এলাকার জয়নাল আবেদীন জানান, গত ৪ মাস পূর্বে এ সড়কে দূঘটনার শিকার হয়ে তার নিকট আত্মীয়সহ ৩ জন লোক ঘটনার স্থানে মারাগেছে।
এছাড়াও সড়কে চলাচলকারী বেশ কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানাগেছে, সড়কটি গত কয়েক বছর আগে একবার সংস্কার করা হয়েছে। কিন্তু ঠিকমত কাজ না করার কারনে আবারো ওই স্থান গুলোতে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র ফরিদগঞ্জ উপজেলার সাধারণ সম্পাদক নারায়ন রবিদাস বলেন, এ সড়কটিতে চলতি বছরে অনেক দূর্ঘটনা ঘটেছে, বেশ কয়েকজন যাত্রী ও পথচারী দূঘর্টনার শিকার হয়ে মারা গেছে। তবে দূর্ঘটনায় অদক্ষ চালকদের পাশাপাশি সড়কে দূর্ঘটনার অনেকটা কারণ এ সড়কে বিভিন্ন স্থানে এ সব গর্ত। আমরা চাই সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ দ্রুত সংস্কারের মাধ্যমে এর সমাধান করবে।
সড়ক ও জনপদ বিভাগ চাঁদপুর জেলা পরিচালক আতিকুর রহমান জানান, জনদূর্ভোগের বিষয়টি মাথায় রেখেই সংশ্লিষ্ট সড়কটি সংস্কারের ব্যবস্থা করবো। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা কাজ দরতে পারবো।

Share This post