মোঃ জামাল হোসেনঃ
শাহরাস্তিতে যাত্রীদের হারিয়ে যাওয়া ব্যাগ প্রকৃত ব্যক্তির কাছে ফিরিয়ে দিলেন মালিক সমিতি। প্রতিদিন হাজার হাজার যাত্রীবহন করে থাকে সিএনজি চালিত অটোরিকশা, মানুষের প্রয়োজনে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াত করতে হয় যাত্রীদের, অনেক সময় তাড়াহুড়া করতে গিয়ে মূল্যবান জিনিসপত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সিএনজি স্কুটারে রেখেই চলে যান অনেকেই, এসব মূল্যবান জিনিসপত্র না পেয়ে দিকবিদিক ছুটাছুটি করতে হয় যাত্রীদের। যাত্রীদের এসকল সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে চাঁদপুর জেলা সিএনজি চালিত অটোরিকশা মালিক সমিতি সবসময় তৎপর থাকতে দেখা গেছে। সমিতি কর্তৃপক্ষ প্রত্যেক সিএনজি চালকদের এ বিষয়ে নির্দেশ দেওয়া হয় কোন যাত্রী ভুলবশত কোন ব্যাগ অথবা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গাড়িতে ফেলে চলে গেলে সে সকল জিনিসপত্র মালিক সমিতির কার্যালয়ে জমা দিতে হয়। এরপর সমিতির ফেসবুক পেজের মাধ্যমে তা সকলের কাছে এই বার্তা পৌছে দেওয়া হয়। এমনকি যানজট নিরসনে শাহরাস্তি গেইট দোয়াভাঙ্গা জনসচেতনতা মূলক প্রচারণা ব্যবহৃত মাইক এর মাধ্যমে প্রচার করা হয়। তেমনি গত রোববার বিকেলে কচুয়া উপজেলার পিপলকরা গ্রামের কাজী মোস্তফা কামাল কচুয়া- কালিয়াপাড়া আসার পথে তার মূল্যবান জিনিসপত্র একটি ব্যাগ সিএনজি স্কুটারের রেখেই চলে যান, স্কুটার চালাক ব্যক্তি ব্যাগটি পেয়ে সমিতির কার্যালয়ে জমা দিলে, সমিতির পক্ষ থেকে চাঁদপুর জেলা সিএনজি মালিক সমিতির সভাপতি আবুল হোসেন মজুমদার এর নির্দেশে ক্রমে মাইকিং করা হয়। সংবাদ পেয়ে কাজী মোস্তফা কামাল সমিতির কার্যালয়ে উপস্থিত হলে সভাপতি মোঃ আবুল হোসেন মজুমদার তার হাতে ব্যাগটি তুলে দেন। প্রকৃত মালিক ব্যাগটি পেয়ে সমিতির সভাপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। এমনি করে বর্তমানে সমিতির কার্যালয় আরো প্রায় ২০টি ব্যাগ জমা রয়েছে। এক বছর ধরে বিভিন্নভাবে প্রচার প্রচারনা করেও ব্যাগগুলোর প্রকৃত মালিকের সন্ধান না পাওয়া। ব্যাগগুলো এতিম অসহায় গরিব জনগণের মাঝে বিলিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কেউ না আসলে ব্যাগগুলো বিলিয়ে দেওয়া হবে।

মালিক সমিতির সভাপতি মোঃ আবুল হোসেন মজুমদার জানান আমার যাত্রীদের জিনিসপত্র তাদের হাতে তুলে দিলেই তৃপ্তি পাই। এ পর্যন্ত বহুযাত্রী তাদের হারিয়ে যাওয়া জিনিসপত্র ফিরে পেয়েছেন। প্রায় এক বছর যাবত কিছু ব্যাগ আমাদের কাছে রয়ে গেছে কেউ নিতে আসেনি, তাই এসকল ব্যাগ গুলো গরীব এতিম অসহায় জনগণের মাঝে বিলিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান ব্যাগ গুলোর মধ্যে নতুন পুরাতন জামা কাপড় ও কিছু টাকা রয়েছে।

Share This post