• বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২১ অপরাহ্ন

হাজীগঞ্জে রাতের আঁধারে জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনি দখল

আপডেটঃ : বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
রাতের আঁধারে নতুন সাঁটার লাগিয়ে হাজীগঞ্জ পশ্চিম বাজারস্থ বিশ্বরোডে (চৌরাস্তায়) অবস্থতি জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনি দখল করা হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত (বুধবার) রাতে এই যাত্রী ছাউনিটি দখল করা হয়। তবে কে বা কারা জেলা পরিষদের এই যাত্রী ছাউনি দখল করেছে এই বিষয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী কেউ মুখ খুলছেনা। এ দিকে এই ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ (ফেসবুক) চলছে সমালোচনার ঝড়।
সরেজমিন পরিদর্শন করে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, যাত্রী ছাউনির পাশের ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা আজ (বুধবার) সকালে এসে দেখেন, যাত্রী ছাউনির চারদিকে নতুন করে সাঁটার লাগানো। অর্থাৎ যাত্রী ছাউনির পশ্চিম দিকে দুইটি ও উত্তর দিকে দুইটি করে মোট ৪টি সাঁটার লাগিয়ে যাত্রী ছাউনিটি দখল করা হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবসায়ী ও স্থানীয়দের সাথে কথা বললে, তার কেউই সাঁটার লাগানোর বিষয়টি জানেন না বলে জানান।
জানা গেছে, হাজীগঞ্জ বাজারস্থ চৌরাস্তা বিশ^রোড জেলা পরিষদ যাত্রীদের সুবিধার্থে যাত্রী ছাউনি নির্মাণ করে। যাত্রী ছাউনিটির সামনে দু’পাশেই দীর্ঘদিন ধরে হকারেরা ছোট ছোট দোকান তুলে এবং ভ্রাম্যমান দোকান সাজিয়ে ব্যবসা করে আসছে। এটিতে যাত্রী ছাড়াও হাজীগঞ্জ বাজারে আসা ক্রেতা, বিক্রেতা ও পথচারী এবং রোদ-ঝড়-বৃষ্টিতে ছিন্নমূল, ভবঘুরে ও মানসিক ভারসাম্যহীন লোকেরা আশ্রয় নিতো।
এ ছাড়াও দূর-দূরান্ত থেকে আসা যাত্রীরা এখানে বিশ্রাম নিতেন। আবার লোকজন ছাড়াও বাজারের কুকুর ও ছাগল ঝড়-বৃষ্টিতে এই যাত্রী ছাউনিটিতে আশ্রয় নিতো। কিন্তু হঠাৎ করে বুধবার দিবাগত গভীর রাতে কে বা কারা যাত্রী ছাউনির দু’দিকে নতুন করে ৪টি সাঁটার সাটিয়ে এটি দখল করে নেয়। এই ঘটনায় বিভিন্ন মোটরযান শ্রমিক, যাত্রী, ব্যবসায়ী, স্থানীয় ও এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
এদিকে যাত্রী ছাউনিটি দখলের বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী জসিমকে দায়ী করা হয়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে হাজী জসিম মুঠোফোনে বলেন, যাত্রী ছাউনি দখলের সাথে আমার বিন্দুমাত্র সম্পর্ক নেই। এটি কে বা কাহারা দখল করেছে এই বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।
রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তার বিরুদ্ধে অপ-প্রচার করছেন উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, যারা আমার সম্মানহানী করার জন্য ফেসবুকে মিথ্যা অপবাদ রটায়, আমি তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তিনি বলেন, শুধু এই যাত্রী ছাউনি নয়, জেলার মধ্যে যতগুলো দখলকৃত যাত্রী ছাউনি আছে, সবগুলো দখলমুক্ত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলবো।
এ ব্যাপারে চাঁদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ওচমান গণি পাটওয়ারী মুঠোফোনে সাংবাদিকদের বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। এখন ঢাকা থেকে চিকিৎসা নিয়ে চাঁদপুরে আসার পথে। হাজীগঞ্জ জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনিটি রাতের অন্ধকারে কে বা কাহারা দখল করেছে, আমি তা শুনেছি।
তিনি আরো বলেন, আমি শুক্রবার হাজীগঞ্জে আসবো। বিষয়টি দেখে তাৎক্ষণিক জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনিটি জনগণের জন্য উম্মুক্ত করে দেয়া হবে। এ সময় তিনি বলেন, যারা অন্যায়ভাবে এসব অপরাধ করেছে, তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…