মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
সরকারি ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন বাস্তবায়ন ও করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম ও স্বাস্থ্যবিধি মানাতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে হাজীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়েছে। মঙ্গলবার দিনব্যাপী হাজীগঞ্জ বাজার, বেলচোঁ বাজার, বলাখাল বাজার ও বাকিলা বাজারসহ আশ-পাশের এলাকায় নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উজ্জল হোসেনের নেতৃত্বে এই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়।
এ সময় সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের বিধি নিষেধ না মানা, স্বাস্থ্যবিধি না মানাসহ মাস্ক পরিধান না করায় ১২ মামলায় ১২ জনকে নগদ ২৭ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করেন, জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উজ্জল হোসেন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকালে ব্যবসায়ী, ক্রেতা ও পথচারীদের লকডাউনের বিধি-নিষেধ, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা ও মাস্ক পরিধান করার নির্দেশনা প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
্ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন নিশ্চিতকরণ ও করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি জেলা প্রশাসন হাজীগঞ্জ বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে আসছেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার মো. উজ্জল হোসেন। ভ্রাম্যমান আদালতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব পালন করেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর সদস্যরা।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উজ্জল হোসেন বলেন, সরকারি বিধি নিষেধ অমান্য করে হাজীগঞ্জ বাজারের বিজনেস পার্ক মকিমউদ্দিন শপিং সেন্টারের প্রায় সবগুলো দোকান খোলা ছিল। অভিযানে ব্যবসায়ীরা ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে অনেকে দোকানের সাঁটার টানিয়ে আবার দোকান খোলা রেখেই অনেকে পালিয়ে যায়।
এ সময় তিনি মহামারি করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ক্রেতা ও বিক্রেতাসহ সর্বসাধারণকে সরকারি বিধি-নিষেধ এবং মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহবান জানান। এছাড়াও জনসচেতনতায় ভ্রাম্যমান আদালতের এই অভিযান অব্যাহৃত থাকবে বলে তিনি সংবাদকর্মীদের জানান

Share This post