স্টাফ রিপোর্টার :
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮ ঘটিকার সময় মোহনপুর ছাড়াকান্দি লনি মিজির বাড়ি সংলগ্ন বেরীবাঁধের উপর এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সহকারি পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) ইয়াছির আরাফাত ও মতলব উত্তর থানার ওসি মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করেন।
মোহনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য বিল্লাল হোসেন তফাদার বলেন, মোহনপুর গ্রামের মৃত রুপ মিয়া খালাশীর ছেলে আহার খালাশীর নেতৃত্বে নবিন খালাশীর ছেলে নুরুল ইসলাম খালাশী, মাখন খালাশীর ছেলে শিপন খালাশী, বারেক বেপারীর ছেলে পাভেল বেপারী, সাহাবুদ্দিন খালাশীর ছেলে আজাদ খালাশী, মৃত সিদ্দিক খালাশীর ছেলে হালেম খালাশী, রেফুল বেপারীর ছেলে মামুন বেপারী, হান্নু খালাশীর ছেলে কামাল খালাশীসহ আরো কয়েকজন আহার খালাশীর ব্যক্তিগত অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরন করে আতংক সৃষ্টি করতে চেয়েছিল। খবর পেয়ে মোহনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে পৌছলে তাদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে ঘটনা নিয়ন্ত্রণ করে। না হলে উক্ত ব্যক্তিরা এলাকার আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটাতো। তারা প্রায়শই এলাকায় এধরণের ঘটনায় লিপ্ত থাকে।
আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান বলেন, আহার খালাশীর নেতৃত্বে উক্ত লোকেরা বোমা ফাঁটিয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা ও আতংক সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। এটি একটি জঘন্যতম অপরাধ। এই অপরাধ কেন্দ্র করে এলাকায় যেকোন সময় আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। তাই আমি আশা করি এধরনের অপরাধ দমনে ও এলাকার শান্তি বজায় রাখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করবেন প্রশাসন। এ ব্যাপারে আহার খালাশীর সাথে কথা বলতে এলাকায় খোঁজ করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
মতলব উত্তর থানার ওসি মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারি দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ও হাতাহাতি হয়েছে। তবে ককটেল বা বোমা বিস্ফোরণের কোন আলামত পাওয়া যায়নি। এটা একটা মিথ্যা তথ্য। তিনি আরও বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ আশংকা থাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Share This post