মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
খোলা খাদ্য পন্যের মান নির্ণয়ের লক্ষে হাজীগঞ্জে গুড়া হলুদ, গুড়া মরিচ, বেশন ও গুড়ের নমুনা সংগ্রহ করেছে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। গতকাল সোমবার হাজীগঞ্জ বাজারের ১০টি দোকান থেকে চার ধরনের খোলা পন্যের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে ৩টি দোকান থেকে খোলা গুড়া হলুদ, ৩টি দোকান থেকে গুড়া মরিচ, ২টি দোকান থেকে বেশন ও ২টি দোকান থেকে গুড় সংগ্রহ করা হয়।
খোলা খাদ্য পন্যের মান নির্ণয়ের লক্ষে এ দিন দুপুরে জেলা নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুনতাসির মাহমুদ, উপজেলা স্যানেটারী পরিদর্শক শামসুল ইসলাম রমিজের সার্বিক সহযোগিতায় হাজীগঞ্জ বাজারের বিভিন্ন স্থানের ১০টি দোকান থেকে গুড়া হলুদ, গুড়া মরিচ, বেশন ও গুড়সহ চার ধরনের খোলা খাদ্য পন্য সংগ্রহ করেন।
দেখা গেছে, প্লাস্টিক কৌটার মাধ্যমে প্রতিটি পন্যের ৪টি ভাগে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে প্রতিটি পন্যের একটি পরিচিতি কোড দিয়ে এবং তা আলাদা আলাদা প্যাকেটজাত ও সিলগালা করা হয়। যে দোকান থেকে পন্য সংগ্রহ করা হয়েছে, ওই দোকানে এই সিলগালাকৃত একটি নমুনা সংগ্রহে রাখার জন্য দোকান মালিককে একটি বাউচার/ রিসিটসহ ফিরিয়ে দেয়া হয়।
এ বিষয়ে উপজেলা স্যানেটারী পরিদর্শক শামসুল ইসলাম রমিজ জানান, খোলা খাদ্য পন্যের সংগ্রহকৃত নমুনাগুলো নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পরীক্ষাগারে পাঠানো হবে। আশাকরি এক মাসের মধ্যে এর ফলাফল হাতে পাবো। ফলাফলে যদি কোন পন্য মানহীন হয়, তাহলে ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, নিরাপদ খাদ্যের মান এবং গুণগত মান নিশ্চিতকরণে নমুন সংগ্রহ অব্যাহৃত থাকবে বলে।

Share This post