মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপনের তাৎখনিক হস্তক্ষেপ এবং তড়িৎ পদক্ষেপে সড়কের পানি নিস্কাশনের মধ্য দিয়ে জলাবদ্ধতামুক্ত হলো, হযরত মাদ্দাহ্ খাঁ (রহ.) এর পূর্ণভূমি ও সরকারি অফিসপাড়া হিসেবে খ্যাত আলীগঞ্জ বাজার। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে বারোটায় স্থানীয় এক পথচারীর ফোন পেয়ে তিনি সড়ক থেকে পানি নিস্কাশনের তাৎখনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করেন ওই এলাকা।
মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপনের এমন প্রশংসনীয় উদ্যোগে স্থানীয় ও এলাকাবাসী তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। জানা গেছে, কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন আলীগঞ্জ বাজারে অবস্থিত ড্রেনটি ময়লা-আবর্জনায় ভর্তি ছিল। যার ফলে অতিবৃষ্টি হলেই ওই বাজারের হযরত মাদ্দাহ খাঁ (রহ.) মসজিদ ও মাজার শরীফ গেইট থেকে পিটিআই মোড় পর্যন্ত প্রায় সময় সাময়িক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।
মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত টানা বৃষ্টি (অতিবৃষ্টি) হলে আলীগঞ্জ বাজারের ওই একই স্থানে কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের উপর জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। বিষয়টি স্থানীয় একজন পথচারী মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপনকে অবহিত করলে তিনি তাৎখনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। মেয়রের নির্দেশনায় ঘটনাস্থলে পৌরসভার কনজারভেন্সী ইন্সপেক্টর মনিরুজ্জামান মজুমদার পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের নিয়ে উপস্থিত হন।
এরপর মেয়রের পক্ষে স্থানীয় কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ আজাদ হোসেন মজুমদারের উপস্থিতিতে ড্রেন থেকে ময়লা-আবর্জনা অপসারন করে মাত্র আধাঘন্টার মধ্যেই হযরত মাদ্দাহ খাঁ (রহ.) মসজিদ ও মাজার শরীফ গেইট থেকে পিটিআই মোড় পর্যন্ত সড়ক থেকে পানি নিস্কাশন করে জলাবদ্ধতামুক্ত করা হয়। এ দিকে পৌর মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপনকে ধন্যবাদ জানিয়ে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন স্থানীয় ও এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে একজন সচেতন পথচারী বলেন, ড্রেনটি পরিস্কার রাখার দায়িত্ব আমাদের। স্থানীয়রা যদি ড্রেনে ময়লা-আবর্জনা না পেলে পৌরসভার নির্ধারিত স্থানে (ডাস্টবিনে) রাখে, তাহলে বৃষ্টির পানি ড্রেন দিয়ে দ্রুত নিস্কাশন হয়ে যাবে। এতে করে জলাবদ্ধতার সুযোগ নেই। তাই তিনি ড্রেনসহ যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা না পেলে ডাস্টবিনে পেলার অনুরোধ জানান।

Share This post