• সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন

ঈদের দিন বৃষ্টির পূর্বাভাস

আপডেটঃ : বুধবার, ৫ জুন, ২০১৯

বিশেষ সংবাদদাতা :

চাঁদ দেখা যাওয়ায় বুধবার সারাদেশে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। ইতোমধ্যে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে ব্যস্ততম শহর ছেড়েছেন সর্বস্তরের মানুষ। এখনো অনেকে যাচ্ছেন। এমন সময় তাদের সঙ্গী হয়েছে বৃষ্টি। কারণ গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে জনজীবনে কিদুভেছুটা স্বস্তি ফিরলেও দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ঘরমুখো মানুষদের।

আবহাওয়া অফিস বলছে, চাঁদ দেখা যাওয়ায় বুধবার ঈদ। এদিন রাজধানীসহ দেশের বিভন্ন স্থানে সকাল থেকে বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও গুঁড়ি গুঁড়ি, আবার কোথাও হালকা এমনকি কোথাও ভারী বৃষ্টি হতে পারে। দুপুরে আকাশা কিছুটা পরিষ্কার থাকলেও সন্ধ্যায় আবার বৃষ্টি নামতে পারে। পশ্চিমা বায়ুর চাপ থাকায় এ বৃষ্টি আরও তিনদিন অব্যাহত থাকতে পারে। একই সঙ্গে বজ্রপাতও হতে পারে। আর এ সময় বর্তমানের তাপমাত্রাই বিরাজ করবে। তেমনটা কমবেও না আবার বাড়বেও না। গরমরে প্রভাব থাকবে না। আকাশ বেশিরভাগ সময় মেঘলা থাকতে পারে।

মঙ্গলবার ভোরে রাজধানীতে হালকা বৃষ্টি হয়। এরপর থেকে আকাশের মুখ গোমড়া থাকে। দুপুরে সূর্যের দেখা মিললেও আবারও আকাশ মেঘলা হয়ে যায়। গত কয়েকদিন ধরে তাপমাত্রাও কম রয়েছে।

আবহাওয়াবিদ একে নাজমুল হক  বলেন, ‘আজ রংপুর ও রাজশাহীর দিকে আকাশ পরিষ্কার থাকায় চাঁদ দেখা যায়। তবে এ দিন দক্ষিণাঞ্চলের গোটা আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় চাঁদ দেখা যায়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঈদের দিন রংপুর ও রাজশাহী ছাড়া ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে টানা না হয়ে থেমে থেমে হতে পারে। এছাড়া পশ্চিমা বায়ু থাকায় এ সময়ের বৃষ্টি বেশিরবাগ সময় সকাল এবং সন্ধ্যার দিকে হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে বুধবার সকালে বৃষ্টি হতে পারে। এ বৃষ্টি আরও তিনদিন অব্যাহত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।’

নাজমুল হক বলেন, ‘এখনকার তাপমাত্রা যেমন আছে আগামী তিনদিনও একই অবস্থা বিরাজ তাকবে। আকাশ মেঘলা থাকবে। তবে বৃষ্টি হয়ে গেলে আকাশ পরিষ্কার তাকতে পারে।’

মঙ্গলবারের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- লঘুচাপের বর্ধিতাংশ বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল অতিক্রম করে পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। সমুদ্র সমতল থেকে ৪.৫ কিলোমিটার ঊর্ধ্ব পর্যন্ত একটি সাইক্লোনিক ঘূর্ণিবাত বাংলাদেশ এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে।

ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, ও সিলেট, বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সারাদেশে দিনের ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে।

নদীবন্দরের সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে- খুলনা,পটুয়াখালী, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চল সমূহের উপর দিয়ে পশ্চিম উত্তর পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদী বন্দর সমূহকে ০২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম উত্তর পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদী বন্দর সমূহকে ০১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…