ক্লার্ক ও শিশু সন্তানের সঙ্গে জাসিন্ডা।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডারন অবশেষে বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন। আগামী গ্রীষ্মে বিয়ের পরিকল্পনা করেছেন বলে জানানো হয়েছে। খবর রয়টার্সের।

দেশটির গণমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আর্ডারন কোস্ট রেডিওকে বলেছেন যে তিনি এবং তার সঙ্গী টেলিভিশন হোস্ট ক্লার্ক গেইফোর্ড বিয়ের জন্য “শেষ পর্যন্ত একটি তারিখ পেয়েছেন”।

জাসিন্ডার উদ্ধৃতি দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘এর অর্থ এটি নয় যে, বিষয়টি আমরা কাউকে জানিয়েছি। তাই আমার মনে হয়, আগে কিছু মানুষকে আমাদের নিমন্ত্রণ করা উচিত।’

৪০ বছর বয়সী জাসিন্ডা এবং ৪৪ বছর বয়সী ক্লার্ক ২০১৯ সালের ইস্টার হলিডেতে বাগদান সেরেছিলেন। তাদের দু’বছরের একটি মেয়েও রয়েছে।

জাসিন্ডা আর্ডারন জানান, দক্ষিণ গোলার্ধে ডিসেম্বরের থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত গ্রীষ্মে বিবাহের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এটি সম্ভবত ঐতিহ্যবাহীভাবে উদযাপিত হবে না। আর জাসিন্ডা বিবাহের পার্টি করাতে কিছুটা বয়স্ক বোধও করছেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, আজ সকালে যা কিছু জানানো হয়েছে তার চেয়ে বেশি কিছু করার নেই।

২০১৩ সালে তিনি ক্ষমতা গ্রহণের সময় জাসিন্ডা নিউজিল্যান্ডের কনিষ্ঠতম প্রধানমন্ত্রী হন এবং গর্ভবতী থাকাকালীন পদে অধিষ্ঠিত নির্বাচিত কয়েকজন নেতার মধ্যে অন্যতম।

গত অক্টোবরে তিনি ক্ষমতায় পুনরায় আসেন মূলত অর্ধ শতাব্দীতে তার কেন্দ্র-বাম লেবার পার্টির পক্ষে সবচেয়ে বড় নির্বাচনের বিজয় দেওয়াকে কেন্দ্র করে এবং কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবকে রোধ করার বিষয়ে তার সরকারের সিদ্ধান্তমূলক প্রতিক্রিয়ার কারণে।

Share This post