• রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

ন্যায় বিচার পাওয়ায়, কচুয়ায় গ্রাম আদালতে বাড়ছে মানুষের আস্থা

আপডেটঃ : শনিবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২০

জিসান আহমেদ নান্নু ॥
বর্তমান সরকারের নতুন আইনী সেবা সহায়তা,হাতের কাছে সাধারন মানুষের সহজে ন্যায় বিচার পাওয়ায় গ্রাম আদালত কার্যক্রম দেশব্যাপী শুরু হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ৮নং কাদলা ইউনিয়ন পরিষদে দিন দিন গ্রাাম আদালতের প্রতি আস্থা বাড়ছে সাধারণ মানুষের। শুধুমাত্র ১০ টাকা ফি দিয়ে ফৌজদারী এবং ২০টাকা ফি দিয়ে দেওয়ানী মামলা করতে পারছেন ভুক্তভোগীরা। গরীব দুঃখী ও অসহায় মানুষের সুবিচার নিশ্চিত করতে কাজ করছে গ্রাম আদালত।
গ্রাম আদালতের নিয়ম অনুযায়ী মাত্র ৯০দিনের মধ্যে আবেদনকারী তার মামলা নিস্পত্তি করতে পারবেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বল্প খরচে অল্প সময়ে এই সুবিধা পেয়ে খুবই খুশি কাদলা ইউনিয়নের জনগণ। ছোট খাটো সমস্যা নিরসনে থানা পুলিশ কিংবা কোর্ট কাচারী করতে হচ্ছেনা তাদের। বাড়িতে বসেই গ্রাম আদালতের মাধ্যমে কাঙ্খিত বিচার পেয়ে বেশ উচ্ছসিত এখানকার মানুষ। এসকল মামলার বাদী এবং বিবাদী উভয়েই হয়রানি থেকে রক্ষা পেয়েছেন। এমনকি আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থের হাত থেকেও রক্ষা ও পেয়েছেন সঠিক বিচার।
কাদলা গ্রামের বাসিন্দা আবুল খায়ের জানান, কিছুদিন আগে আমার গ্রামের আমার আত্মীয় স্বজদের মাঝে জমিজমা নিয়ে বিরোধ হয়, স্থানীয় ভাবে আমি সমস্যা সমাধান না পেয়ে গ্রাম আদালতের স্মরণাপন্ন হয়ে সঠিক বিচার পাই।
গ্রাম আদালত সমন্বয়কারী মো. রাকিব হোসেন জানান, ২০১৭সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের জুন পর্যন্ত অনেক মামলা গ্রাম আদালতে হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৯০ ভাগ মামলা নিষ্পত্তি করা হয়েছে।
ইউপি চেয়ারম্যান ও গ্রাম আদালতের বিচারক মো. রফিকুল ইসলাম লালু বলেন, বর্তমান সরকারের মূল লক্ষ হচ্ছে দেশের প্রতিটি নাগরিকের জন্য আইনী সহায়তা সু-নিশ্চিত করা। সে কারণেই আমি দায়িত্বে আসার পর থেকেই গ্রাম আদালত বিষয়ক সভা সেমিনারসহ উঠান বৈঠক করে জন-সচেতনতা বাড়ানোর চেষ্টা করে আসেছি। এছাড়াও এ বিষয়ে বিভিন্ন ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহন করে জন-কল্যানে কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের লক্ষ হচ্ছে সমাজে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…