• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১০ অপরাহ্ন

সোলাইমান খোকন স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গাছের চারা বিতরণ ও আলোচনা

আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯

জিসান আহমেদ নান্নু ॥
কচুয়া উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামের বাসিন্দা নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে মসজিদ নির্মানকে কেন্দ্র করে কতিপয় লোকজনে গুজবে নির্মম হত্যাকান্ডের স্বীকার সোলেমান খোকন স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গাছের চারা বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে কচুয়া পৌর সদরের দক্ষিন বাজারস্থ পুরাতন বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন কার্যালয়ে সোলাইমান খোকন স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ফাউন্ডেশনের সভাপতি ইয়াসমিন আক্তার ইলার সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মফিজুল ইসলাম বাবুলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওয়ালী উল্লাহ (অলি)। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,কচুয়া উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোঃ আক্তার উদ্দিন প্রধান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কচুয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন,বর্তমান সাধারন সম্পাদক জিসান আহমেদ নান্নু। উদ্বোধকের বক্তব্যে অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওয়ালী উল্লাহ (অলি) বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষনা অনুযায়ী দেশের প্রতিটি মানুষ যেন ১টি করে গাছ লাগায় এবং বর্তমান সময়ে বাড়ির আঙ্গিনায় পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রেখে ডেঙ্গু জ্বর থেকে সতর্ক করনীয় গনসচেতনতা মূলক দেশব্যাপী সরকারের কার্যক্রম চলছে এবং তা অব্যাহত রয়েছে। সরকারের পাশাপাশি সামাজিক সংগঠন সোলাইমান খোকন স্মৃতি ফাউন্ডেশনের আয়োজনে আপনাদের এ কার্যক্রমকে সরকারের পক্ষ থেকে অভিনন্দন ও স্বাগত জানাই। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দরা বেশকিছুদিন থেকে আমার সাথে যোগাযোগ রেখে তাদের ফাউন্ডেশনের আদশ্য উদ্দেশ্যের কথা বলেছেন। আমার দৃষ্টিতে ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দরা অত্যান্ত ভালো মানুষ। এ সুবাদে তারা ফাউন্ডেশনের নামের ছাড়পত্র এবং রেজিষ্ট্রেশনের জন্য আবেদন করলে আমি যতটুকু পেরেছি সহযোগীতার মধ্যে ফাইলটি বর্তমানে চাঁদপুর জেলা কার্যালয়ে প্রতি প্রতিক্রিয়াধীন রয়েছে। আমি তাদের এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সামাজিক কর্মকান্ডকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যাশা করছি। ফাউন্ডেশনের সভাপতির বক্তব্যে অতিথিবৃন্দকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, সোলাইমান খোকন আমার আদরের সহদর ভাই। আমার এই ভাইটি পেশায় একজন ড্রাইভার ছিলেন, সিএনজি চালাতো। সে একটি মসজিদ নির্মান কাজ করতে গিয়ে এক শ্রেণীর ধর্ম উম্মাদনাকারী গুজব রটিয়ে দেয় এখানে গির্জা নির্মান করা হচ্ছে। এ গুজুবে ধর্ম উম্মদনাকারীরা জঙ্গী-সন্ত্রাসীদেরকে লেলিয়ে দিয়ে হামলা চালিয় আমার এ আদরের ছোট ভাইটিকে নির্মম ভাবে নির্যাতনের মধ্যে হত্যা করেছে। অথচ তাদের ওই গির্জা নির্মান গুজবের স্থানে প্রকৃত অর্থে সেই সমজিদই নির্মান করা হয়েছে। বর্তমানে মসজিদটিতে প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজসহ শুক্রবারের জুমাও হচ্ছে। আমরা তার নির্মম হত্যার স্মৃতি স্বরনে এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে হত-দরিদ্রদেরকে বিভিন্ন সহতা করা এবং সামাজিক উন্নয়নে আপনাদের সহযোগিতায় সংগঠনটি এগিয়ে নেয়ার মূল লক্ষ উদ্দেশ্য প্রত্যাশা করছি। তিনি আরো বলেন, সম্প্রতিকাল থেকে দেশে গুজব রটিয়ে যেভাবে মানুষ হত্যা চলছে তা আমরা মেনে নিতে পারছিনা। তাই আসুন গুজবে আমার ভাইসহ অন্যান্য হত্যার প্রতিবাদে ঐক্যবদ্ধ হই এবং আর যেন গুজবে দেশে কোনো হত্যাকান্ডের ঘটনা না ঘটে সে জন্য প্রতিরোধে গড়ে তোলার আহবান জানান।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…