• সোমবার, ১০ জুন ২০২৪, ০২:০৪ পূর্বাহ্ন

ফরিদগঞ্জে গৃহ বধূকে কুপিয়ে হত্যা আটক ১

আপডেটঃ : সোমবার, ২৯ জুলাই, ২০১৯

মো. শিমুল হাছান
ফরিদগঞ্জে জাহেদা আক্তার মিশু (২০) নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার ভোর ৬টায় উপজেলার রূপসা দক্ষিন ইউনিয়নের চরমগুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘাতক সুজন পালাতক রয়েছে।

নিহত জাহেদা আক্তার মিশুর স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত জাহেদা আক্তার মিশু চরমগুয়া এলাকার হরমন আলী বেপারী বাড়ীর মৃত সেলিম ওরফে সাদ্দাম বেপারীর মেয়ে। ২ বছর আগে সন্তোষপুর গ্রামের প্রবাসী সোহেলের সাথে মিশুর বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী প্রবাসে থাকায় জাহেদা আক্তার মিশু বাবার বাড়ীতে থাকতো। বাবার বাড়ীতে থাকা কালিন পাশ^বর্তী বাড়ীর আবুল বাশারের ছেলে বখাটে ও মাদক ব্যবসায়ী সুজন (২৮) মিশুকে বার বার আপত্তিকর প্রস্তাব দিলে মিশু রাজী না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে দেশীয় অস্ত্র বগী দা দিয়ে মিশুকে উপর্যপূরি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

এ সময় মিশুর চিৎকারের শব্দ শুনে তার মা ছালেহা বেগম ছুটে এসে দেখে ঘাতক সুজন হাতে রক্ত মাখা দা নিয়ে ঘর থেকে বের হচ্ছে এবং মিশুর মাকে দা নিয়ে তেড়ে আসে। মিশুর দেহ রক্তাক্ত অবস্থায় ঘরের পড়ে থাকতে দেখে। তাৎক্ষনিক মিশুকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে ঢাকায় প্রেরন করে। ঢাকায় নেওয়ার পথে শিশুর মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের মর্গে প্রেরন করে। নিহত মিশুর চাচা আহসান উল্যাহ বলেন, বখাটে সুজন বেশির ভাগ সময়ই নেশা গ্রস্ত থাকতো। শেষ পর্যন্ত সুজন আমার ভাতিজীকে মেরেই ফেলল। আমরা এ ঘটনার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিব হত্যার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক সুজনের ছোট ভাই তৌফিককে আটক করেছে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেসবুকে মানব খবর…