অমরেশ দত্ত জয়ঃ
চাঁদপুরে আসন্ন ঈদুল আযহা কে সামনে রেখে বাজার মনিটরিং করতে এসে শহরের মদিনা মার্কেটে কাপড়ের দোকানগুলোতে দুই নম্বর কাপড় বিক্রির অভিযোগে ৩ দোকানীকে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। ৫ই জুলাই রোববার ভোক্তা অধিদপ্তর চাঁদপুর কার্যালয়ের পরিচালিত বাজার মনিটরিংয়ে এ অর্থদন্ড দেওয়া হয়।

এ ব্যপারে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা যায়,ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ক্রেতা-সাধারণকে ঠকিয়ে অধিক মুনাফা অর্জন করতে অসাধু কয়েকজন ব্যবসায়ী কাপড়ের দোকানগুলোতে দু-নম্বর কাপড় বিক্রি করছিলো। আর সেই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায় শহরের মদিনা মার্কেটের বেশ কয়েকটি দোকানে প্রবেশ করে। তার প্রেক্ষিতে মদিনা মার্কেটের কাপড় ব্যবসায়ী জননি ক্লথ স্টোরের আশিষ সাহাকে দু-নম্বর কাপড় বিক্রি করার দায়ে ২ হাজার টাকা, রহিম ফ্যাশন হাউজের রাজীব হোসাইন কে ১ হাজার টাকা এবং রেড রোজের শাহাদাত কে আরো ১ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। ঐ সময়ে মদিনা মার্কেটের অন্য কাপড় বিক্রেতাদের দু-নম্বর কাপড় বিক্রির ব্যপারে সতর্ক করা হয় ও ন্যায্য মূল্যে পণ্য বিক্রি করতে দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এ বিষয়টি নিশ্চিত করে বাজার মনিটরিং পরিচালনাকারী ভোক্তা অধিদপ্তর চাঁদপুরের সহকারী পরিচালক নূর হোসেন সাংবাদিকদের জানান,আসন্ন ঈদুল আযহা কে সামনে রেখে আমরা নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাজার মনিটরিংয়ে গিয়েছি। সেখানে মদিনা মার্কেটের বেশ কয়েকজন কাপড় বিক্রেতা দু-নম্বর কাপড় বিক্রি করায় তাদের কে অর্থদন্ড প্রদান করে সতর্ক করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, শহরের পাল বাজারের ক্রেতা সাধারনের চলাচলে বাধাগ্রস্ত করে দোকানের মালামাল রাস্তার উপর এনে প্রসরা সাজানোর অভিযোগে বাসুদেব ঘোষের জিলাপি দোকানকে ১ হাজার টাকা, অখিল ঘোষের দোকানের মিহির ঘোষ কে ২ হাজার টাকা এবং ঘোষ কেবিনের নুপুর ঘোষকে আরো ১ হাজার টাকা অর্থদন্ডসহ এদিনে মোট ৬ দোকানীর থেকে সর্বমোট ৮ হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করা হয়েছে। এ ছাড়াও বিভিন্ন ঔষুধের দোকানীকে মেয়াদবিহীন ঔষুধ বিক্রি না করতে সতর্ক করা হয়েছে। জনসচেতনতামূলক এ ধরণের বাজার মনিটরিং পরিচালনা আমাদের পক্ষ থেকে অব্যাহত থাকবে।

এ সময় বাজার মনিটরিংয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানার এস আই রেজাউল ও সঙ্গীয় ফোর্স,জেলা ক্যাব সদস্য বিপ্লব সরকার,সাংবাদিকবৃন্দ সহ অন্যান্যরা সহযোগিতা করেছেন।

Share This post