নিজস্ব প্রতিবেদক:

বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। এ ভাইরাসে মৃত্যুর মিছিল থামাতে প্রতিষেধক আবিষ্কারে হিমশিম খাচ্ছে বিশ্ব বিজ্ঞান। ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের অভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবাও দেয়া যাচ্ছে না।

ঠিক এ সময়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধক বিশেষ কাপড় তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশে। দেশের বস্ত্রখাতের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান জাবের অ্যান্ড জুবায়ের ফেব্রিক্স লিমিটেড এ প্রতিরোধক কাপড়ের উদ্ভাবক। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ কাপড় শুধু করোনাভাইরাস নয়, যে কোনো ভাইরাসে প্রতিরোধে কাজ করবে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধক এ কাপড় তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে বিশেষ রাসায়নিক পদার্থ। ফলে এ কাপড়ে করোনাভাইরাস বা অন্য কোনো ভাইরাস লাগবে না। যদি কোনোভাবে ভাইরাস ওই কাপড়ে লাগেও, তাহলে দুই মিনিটের মধ্যে ৯৯ দশমিক ৯ শতাংশ ভাইরাস দূর হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে জাবের অ্যান্ড জুবায়ের ফেব্রিক্সের ব্র্যান্ড অ্যান্ড কমিউনিকেশন ম্যানেজার অনল রায়হান বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধক বিশেষ কাপড় তৈরি করা হয়েছে। পোশাক তৈরিতে ভাইরাস প্রতিরোধক এই কাপড় ব্যবহার করা যাবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৪ মে) রাজধানীর গুলশানে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই কাপড় উদ্ভাবনের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।

বিশেষ এ কাপড় রফতানির জন্য তৈরি করা হয়েছে জানিয়ে প্রতিষ্ঠানটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ইতোমধ্যে বিশেষ এই কাপড় আন্তর্জাতিকভাবে মান সনদের স্বীকৃতি পেয়েছে। আইএসও ১৮১৮৪-এর অধীনে এটি পরীক্ষা করা হয়। কাপড় তৈরিতে যেসব মূল উপাদান ব্যবহার করা হয়েছে তা যুক্তরাষ্ট্রের বিষাক্ত পদার্থ নিয়ন্ত্রণ আইন ও পরিবেশগত সুরক্ষা সংস্থায় নিবন্ধিত। ভাইরাস রোধে এ কাপড় প্রায় শতভাগ নিরাপত্তা দেবে। তবে ২০ বার ধোয়ার পর এর কার্যকারিতা কতখানি থাকবে, এ বিষয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে।

তারপরও বিশেষ এ কাপড় নিতে ইউরোপ-আমেরিকার ক্রেতাদের কাছ থেকে বেশ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

Share This post