মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জের গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ও গন্ধর্ব্যপুর দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে সোমবার (২৫ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত এই বর্ধিত সভায় দুুই ইউনিয়নে মোট ১৯জন প্রার্থী তাদের নিজ নিজ প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। এর মধ্যে গন্ধর্ব্যপুর উত্তরে ১২ জন এবং গন্ধর্ব্যপুর দক্ষিণে ৭জন। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকাকরণে এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এদিন সকালে গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের হলরুমে অনুষ্ঠিত সভায় ইউপি চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম ঘোষণার আহ্বান করেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মাইনুদ্দিন। এরপর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী নুরুর রহমান বেলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য ১২ জন প্রার্থী তাদের নিজ নিজ প্রার্থীতা ঘোষণা করেন।

তারা হলে, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী নুরুর রহমান বেলাল, সাধারণ সম্পাদক গাজী ওয়ালি উল্যাহ, বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম মেলেটারী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মুনছুর আহমেদ বিপ্লব, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুছ সরকার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মিজানুর রহমান, ৭নংওর্য়াড আওয়ামী লীগ সভাপতি শাহআলম বাবুল, ২নং ওর্য়াড আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল কাশেম, আ’লীগ নেতা মমতাজ উদ্দিন মন্টু, ইউপি সদস্য ফিরোজ আহমেদ হীরা, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, অলি আহমেদ।

এরপর এদিন বিকালে আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে গন্ধর্ব্যপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের দেশগাঁও জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের হলরুমে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু। সভায় নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে ৭ জন প্রার্থী তাদের নিজ নিজ প্রার্থীতা ঘোষণা করেন।

তারা হলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন রানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. দুলাল হোসেন, সদস্য সিরাজুল ইসলাম ভুঁইয়া, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মনির আহমেদ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম আটিয়া।

এর আগে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ রোটা. আহসান হাবীব অরুন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ হেলাল উদ্দিন মিয়াজী, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ সৈয়দ আহম্মদ খসরু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক মুরাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. হারুন অর রশিদ মুন্সী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলী আশ্রাফ দুলাল, কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব আসফাকুল আলম চৌধুরী, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মোহাম্মদ মনির, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাসুদ ইকবাল, সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক জাকির হোসেন সোহেল, পৌর যুবলীগের আহবায়ক হায়দার পারভেজ সুজনসহ উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও উপজেলা পৌর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তাজুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবায়েদুর রহমান খোকন বলি, সাধারণ সম্পাদক আবু ইউছুফ গাজী মোহন, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাছান রাব্বিসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, উপজেলা ও পৌর যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ রেজ্যুলেশনের মাধ্যমে প্রার্থীদের নাম, ব্যক্তিগত সিভি (জীবন বৃত্তান্ত), পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ হেলাল উদ্দিন মিয়াজী ও সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মাইনুদ্দিন।

উপজেলা আওয়ামী লীগ স্ব-স্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের রেজ্যুলেশন, প্রার্থীদের সিভি, ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ জেলা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠাবেন এবং জেলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় আওয়ামী লীগের কাছে উল্লেখিত তথ্যগুলো পাঠাবেন। পরবর্তীতে এ তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই করে দলীয় সভানেত্রীর সিদ্ধান্তক্রমে মনোনয়ন বোর্ড প্রতিটি ইউনিয়নে একজন করে আওয়ামী লীগের প্রার্থীতা ঘোষণা করবেন।

Share This post