গাজী মমিন, ফরিদগঞ্জ:
১২ সেপ্টেম্বর সারাদেশের সাথে ফরিদগঞ্জ উপজেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯’র হাত থেকে সু-রক্ষার জন্য উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে আপতত ৫ম শ্রেণীর ৭ হাজার শিক্ষার্থীদের জন্য কাপড়ের তৈরি ৭ হাজার মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে এ মাস্ক শিক্ষকদের হাতে তুলেদেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান।
এর আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আজকের শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তারাই আগামীতে দেশ পরিচালনা করবে। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তাই দেশকে ভালোবেসে আগামীতে যেন মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব থাকে,সেই চিন্তা চেতনাকে কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে মনোযোগী হতে হবে।
জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে নিয়ে এসেছে। কারও কাছে হাত পেতে নয়, মাথা নত করে নয়, নিজের মেধা ও শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে আজ বিশ্বে দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করিয়েছে বাংলাদেশকে। এ কারনে আমাদের শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার প্রতি মনোযোগী করে গড়ে তুলতে হবে। মহামারি করোণা ভাইরাস’র কারনে দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো, কিন্তু শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার প্রতি মনোযোগ সরকারের কমতি ছিলোনা। আমাদের খামখেয়ালী পনায় যেন কোন শিক্ষার্থীর পড়াশোনার ক্ষতি না হয়। কোন শিক্ষার্থী যেন অসুস্থ হয়ে না পড়ে, সেই দিকে সজাগ দৃষ্টি রখে বিদ্যালয় পরিচালনা করতে হবে।
এই সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলী হরি,ভাইস চেয়ারম্যান জিএস তছলিম, মাজুদা বেগম, শিক্ষা অফিসার মনিরুজ্জামান, মৎস্য কর্মকর্তা ফারহানা আক্তার রুমা,সহকারী শিক্ষা অফিসার বেলায়েত হোসেন, মোতালেব হোসেন, প্রেসক্লাবের উন্নয়ণ কমিটির চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ পাঠান, সাবেক সভাপতি নুরুন্নবী নোমান প্রমূখ।

Share This post